সোমবার, ১৯ এপ্রিল ২০২১, ০৮:২৫ পূর্বাহ্ন

চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির আহবায়ক শাহাদাত কারাগারে

চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির আহবায়ক শাহাদাত কারাগারে

চট্টগ্রাম মহানগর বিএপি’র আহ্বায়ক ডা. শাহাদাত হোসেনকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছে আদালত। বিএনপি’র এক নেত্রীর দায়ের করা চাঁদাবাজির মামলায় গ্রেপ্তার করে আজ মঙ্গলবার বিকেল ৫টার দিকে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট সরোয়ার জাহানের আদালত তাকে হাজির করা
হলে এই আদেশ দেয় হয়।
এরআগে সোমবার সন্ধ্যায় নগরীর পাঁচলাইশ এলাকার ট্রিটমেন্ট হাসপাতালের চেম্বার থেকে নগর বিএনপির আহবায়ক ডা. শাহাদাতকে গ্রেপ্তার করা হয়।

ডা. শাহাদাত হোসেনের আইনজীবী অ্যাডভোকেট এস এম বদরুল আনোয়ার জানান, তিন মামলায় ডা. শাহাদাত হোসেনকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। এসব মামলায় আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন। বুধবার মামলার শুনানির দিন ঠিক করেছেন।

এদিকে সোমবার গ্রেফতার বিএনপির ১৫ নেতাকর্মীকেও আদালতে হাজির করা হয়। তাদের আইনজীবী অ্যাডভোকেট মো. জাহিদুল আলম জানান, ১৫ নেতাকর্মীকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত। আগামীকাল বুধবার তাদের রিমান্ড শুনানি হবে।

নগর পুলিশের উপ-কমিশনার (দক্ষিণ) এস এম মেহেদী হাসান বলেন, আজ মঙ্গলবার দুপুরে নগরীর চকবাজার থানায় শাহাদাতের বিরুদ্ধে কোটি টাকা চাঁদাবাজির অভিযোগে লুসি খাঁন নামের একজন নারী মামলা করেন। ওই মামলায় তাকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। মামলার বাদী ডা. লুসি খান গতবারের বিএনপির নগর কমিটির মহিলা বিষয়ক সহ-সম্পাদক ছিলেন। চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে তিনি দলীয় মনোনয়ন চেয়েছিলেন। কিন্তু মনোনয়ন পাননি। বিএনপি থেকে পদত্যাগ করা সাবেক মন্ত্রী এম মোরশেদ খানের নিকটাত্মীয় লুসি খাঁন চকবাজার এলাকায় ‘জীবন চিত্র ফাউন্ডেশন’ নামের একটি এনজিও পরিচালনা করেন।

সোমবার বিকালে বিএনপি দলীয় কার্যালয়ের সামনে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনায় ডা. শাহাদাতের সম্পৃক্ততা রয়েছে বলেও জানান নগর পুলিশের উপ-কমিশনার (দক্ষিণ) এস এম মেহেদী হাসান।

লুসি খানের অভিযোগ, মেয়র পদে মনোনয়ন চাওয়ায় তিনি শাহাদাত হোসেনের রোষানলে পড়েন। জীবনচিত্র ফাউন্ডেশন থেকে তিনি নিয়মিত বিনামূল্যে চিকিৎসা ক্যাম্পের আয়োজন করতেন। কিন্তু মেয়র পদে মনোনয়ন চাওয়ার পর থেকে শাহাদাতের বাধায় তিনি আর চিকিৎসা ক্যাম্পের আয়োজন করতে পারেননি।

গত ২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবসেও তিনি ফ্রি হেলথ ক্যাম্পের আয়োজন করে শাহাদাতের বাধায় ব্যর্থ হন। এমনকি তার ব্যক্তিগত সহকারী মহিউদ্দিন আহমদ চৌধুরীকে আটকে রেখে শাহাদাত হয়রানি করেন।

জীবনচিত্র ফাউন্ডেশন নামে ওই এনজিও থেকে শাহাদাত হোসেন বিভিন্ন সময়ে এক কোটি টাকা চাঁদা দাবি করেছেন বলে মামলায় অভিযোগ করেছেন লুসি খাঁন।

খবরটি শেয়ার করুন..




© All rights reserved © 2020 onusondhan24.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!